ছড়া,কবিতা নির্বাচিত

চোখবিষয়ক জটিলতা – জুবায়ের আহসান

অসংখ্য মানুষ দেখে দেখে এই দুই চোখ
ব্যথায় নিথর হয়ে আছে।
পারি না তাকাতে কারো দিকে,
যন্ত্রণার নীরব পাথর বুকে চাপা দিয়ে
জেগে থাকি সারাটা রাত।
কারো কারো চোখ বড় বেশি স্থির, বরফশীতল,
বিন্দুমাত্র টলানো যায় না, আবার কারো বা
চোখের মণিতে মোলায়েম ভাষা,
কারো চোখে নিষ্ঠুর শাসন,
নিঃশব্দ ছলনা, দুর্বোধ্য ইঙ্গিত,
প্রতারণা নামক নিখুঁত ফাঁদ,
কারো চোখ থেকে উপচে পড়ে ক্রুর হাসি।

লাবণ্যবিহীন অসংখ্য চোখের ভিড়ে
আমি চমকে উঠি বারবার,
মানবিক আচরণ খুব কমই খুঁজে পাই,
তবুও, চোখাচোখি হলে কুশল বিনিময় করি,
জেনে নেই, কে কেমন আছে..??

তারপর, কুয়াশার মসৃণ চাদর মেলে,
পরম নিশ্চিন্তে সবকিছু ভুলে যাই।

আজকাল আমি আর কারো চোখে
সুন্দরবনের দিগন্তবিস্তৃত গাঢ় সবুজ খুঁজে পাই না,
প্রতিটি চোখে জেগে ওঠে চরম পশুত্ব,
স্বার্থপরতা, বিবেকহীনতা,
যেগুলোকে চোখ না বলে অন্য কিছু বলা ঢের ভালো।

আশ্রয়ের ভাষা নেই কারো চোখে,
আছে শুধু সম্পর্কের সুতো ছেঁড়ার অবাধ্য খেলা।

এসব কিছুর পরেও, আজকাল আমি নতুন করে
চোখ খুঁজতে শুরু করেছি।
একজোড়া কাজলকালো চোখ,
যে চোখজোড়া ধারণ করবে জলভরা দিঘিকে।
যে চোখের দিকে তাকিয়ে
একটা জীবন অনায়াসে কাটিয়ে দেয়া যাবে।
যে চোখ হবে মমতার, পরম নির্ভরতার…

জুবায়ের আহসান

শিক্ষার্থী

 

মন্তব্য করুন